ফুলকপির গুণ জানুন

learn-cauliflower-timesবাংলা দর্পন: বাজারে শীতের সবজির কথা উঠলে প্রথমেই মনে আসে ফুলকপির নাম। বাজারে ঠাসা, পুরুষ্ট ফুলকপি দেখলেই কিনতে ইচ্ছা করে। আর তারপর ফুলকপির দম, ফুলকপির রোস্ট, চিলি ফুলকপি, ফুলকপি দিয়ে ভেটকি মাছ- যা খুশি বানিয়ে নিন। সুস্বাদু এই ফুলকপি পুরো শীতকাল চুটিয়ে খান। এতে সুস্থও থাকবেন। কারণ ফুলকপির রয়েছে প্রচুর পুষ্টিগুণ। জেনে নিন-

হার্ট: ফুলকপির মধ্যে থাকা প্রচুর ফাইবার রক্তে কোলেস্টেরলের মাত্রা নিয়ন্ত্রণে রেখে হার্ট সুস্থ রাখতে সাহায্য করে।

রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা: প্রচুর পরিমাণ অ্যান্টিঅক্সিড্যান্ট থাকার কারণে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে সাহায্য করে ফুলকপি। যা ফুলকপিকে শীতের সব্জির তালিকায় শীর্ষে রাখে।

ভ্রূণ: ফুলকপিতে থাকা ভিটামিন এ ও নানা রকম বি ভিটামিন গর্ভে ভ্রূণের গঠনে সাহায্য করে। এর মধ্যে থাকা ভিটামিন সি প্রেগন্যান্সিতে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।

ক্যালসিয়াম: হাড়, দাঁত ও স্নায়ুর স্বাস্থ্য ভাল রাখতে সাহায্য করে ফুলকপিতে থাকা ক্যালসিয়াম।

মিনারেল: ফুলকপিতে থাকা জিঙ্ক শরীরের ক্ষয় রুখতে সাহায্য করে, ম্যাগনেশিয়াম ও ফসফরাস হাড় সুস্থ রাখে, সেলেনিয়াম রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়, সোডিয়াম শরীরের ফ্লুইড ব্যালান্স বজায় রাখে, ম্যাঙ্গানিজ প্রয়োজনীয় উৎস উৎপাদনে সাহায্য করে।

ওজন: এক কাপ ফুলকপি মানে ৩০ ক্যালরি। এর মধ্যে থাকা ভিটামিন সি
ফ্যাট কমাতে সাহায্য করে। ওজন কমাতে হলে শীতের মৌসুমে প্রতিদিন খান ফুলকপি।

ডিটক্স: ফুলকপি শরীর ডিটক্স করতে সাহায্য করে। লিভার ও অঙ্গ সুস্থ রাখে।

ভিটামিন কে: ফুলকপিতে থাকা ভিটামিন কে হাড় সুস্থ রাখতে সাহায্য করে।
কাটা ছেঁড়ায় রক্ত জমাট বাঁধতে সাহায্য করে। তাই রোজ ডায়েটে রাখুন ফুলকপি।

ত্বক: ফুলকপির মধ্যে থাকা ভিটামিন সি ও ম্যাঙ্গানিজ অ্যান্টিঅক্সিড্যান্টের কাজ করে ত্বকের বলিরেখা রুখতে সাহায্য করে। হজম ক্ষমতা বাড়িয়ে রক্ত পরিষ্কার রাখে। ফলে ত্বকের স্বাস্থ্য ভাল থাকে।

চুল: ফুলকপির ভিটামিন এ, ই, সি, কে, সোডিয়াম, পটাশিয়াম, ক্যালসিয়াম, ম্যাঙ্গানিজ, জিঙ্ক, ফ্যাট শরীরে পুষ্টি জুগিয়ে চুলের স্বাস্থ্য ভাল রাখতে সাহায্য করে। স্ক্যাল্পের যত্ন নিয়ে চুল পড়া রখতে পারে।